বরিশালে বিজিবির টহল শুরু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট :

বরিশাল : পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণার শেষ সময় সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) রাত ১২টা পর্যন্ত। ভোটারদের মনজয় করতে বরিশালের প্রার্থীরা শেষ মুহূর্তেও ব্যস্ত সময় পার করছেন। দিয়ে যাচ্ছেন নানান ধরণের উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি। এই প্রচারণায় প্রার্থীদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ অন্যান্য দলগুলোর কেন্দ্রীয় নেতারাও মাঠে রয়েছেন।

বিশেষ করে সোমবার সন্ধ্যার পরও বরিশালের উজিরপুর পৌরসভায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন। অবশ্য এই পৌরসভাতে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দারও নেতাকর্মীদের নিয়ে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

একইভাবে বরিশালের বাকি ৫টি পৌরসভাতেও কেন্দ্রীয় নেতারা দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে শেষ মুহূর্তের প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া বরিশাল বিভাগের ভোলা, ঝালকাঠির নলছিটি, পিরোজপুর, পটুয়াখালি এবং বরগুনায়ও দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে কেন্দ্রীয় নেতারা মাঠে রয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এমতাবস্থায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে কোনো ধরণের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে সোমবার বিকেল থেকে রাজপথে টহল দিয়ে যাচ্ছে বিজিবি। বিশেষ করে বেলা ৩টার দিকে বরিশালের গৌরনদী পৌরসভাতে বিজিবি সদস্যদের একটি গাড়িতে টহল দিতে দেখা গেছে।

বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মীর মো. শাজাহান বাংলামেইলকে জানান, নির্বাচনী আইন অনুযায়ী ভোটের ৩২ ঘণ্টা আগে প্রচার বন্ধ থাকার বিধান রয়েছে। সঙ্গত কারণে সোমবার রাত ১২টার পর থেকে সব ধরনের নির্বাচনী প্রচার বন্ধ হয়ে যাবে। ইতোমধ্যে ভোটের সব প্রস্তুতি প্রায় শেষ করে আনা হয়েছে।

যে কোনো ধরণের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে বিভাগের ১৭টি পৌরসভায় বিজিবি মোতায়েন করা হচ্ছে। ভোটের পরদিন পর্যন্ত বিজিবি এসব পৌরসভায় দায়িত্ব পালন করবে। পাশপাশি প্রতিটি পৌরসভাতে তিন থেকে চারজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সমন্বয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হবে।

প্রসঙ্গত, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৩০ ডিসেম্বর বরিশাল বিভাগের ছয় জেলার ১৭টি পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর মধ্যে বরিশালের ছয়টি, ভোলার তিনটি, ঝালকাঠির একটি, পিরোজপুরের দুটি, পটুয়াখালী দুটি এবং বরগুনার তিনটি পৌরসভা রয়েছে।
(টুডে সংবাদ/উদয়া)