ঝড় ওঠা ভিডিও নিয়ে মুখ খুললেন সাকিব

স্পোর্টস ডেস্ক : এক সমর্থকের সঙ্গে উত্তেজিত আচরণ করছেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশ টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কের এমন একটি ভিডিও ফেসবুকে এরইমধ্যে ভাইরাল। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার টিম হোটেলের ওই ভিডিওটির শব্দ স্পষ্ট না হবার কারণে নানা ধরনের ক্যাপশন দিয়ে পোস্ট করা হচ্ছে।

কেউ কেউ লিখেছেন, ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলনের নিয়ে সাকিবকে প্রশ্ন করায় আগ্রাসী ইঙ্গিত করেন সাকিব।

শেখ মিনহাজ হোসেন নামের যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী ঘটনার পর পরই টিম হোটেলে যান। প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে এক টাইগারদের ক্রিকেটের ভক্ত ফেসবুকে জানিয়েছেন, প্রশ্নটা মোটেও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের ব্যাপারে ছিল না। ওই লোক সাকিবের কাছে বারেবার অটোগ্রাফ চাইছিলেন। সাকিব প্রথমে একটা সেলফি তুলেছেন। এরপর আবার ভিডিও করতে চায়। সাকিব তখন ম্যাচ শেষে টায়ার্ড। সাকিব পারবে না বলে সামনে চলে যায়। লোকটা পিছন থেকে ‘ভাব মারায়’ বলে বাজে ভাষা ব্যবহার করেন। সাকিব তখন চেতে ফেরত আসেন!

এঘটনায় নিয়ে এবার নিজেই মুখ খুলেছেন সাকিব। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষের টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের নায়ক বলেন, আমার প্রিয় ভক্ত এবং অনুসারীদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা বলতে চাই। সম্প্রতি আমাকে নিয়ে একটি ভিডিও আপলোড করা হয়েছে যেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের পর লবিতে আমাকে এবং আমার একজন তথাকথিত ‘ফ্যান’ এর সঙ্গে তর্ক বিতর্ক করতে দেখা যায়। এই ক্লিপটি সম্পূর্ণ ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে যা প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ করেনা।

মঙ্গলবার দিনগত রাতে নিজ অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার আরও বলেন, পর পর ম্যাচ থাকায় আমি ও আমার সহকর্মীরা বেশ ক্লান্ত ছিলাম এবং আমরা আমাদের রুমে ফিরে যাচ্ছিলাম। আমাদের নিজস্ব সরঞ্জাম এবং ব্যাগ বহন করছিলাম তাই আমাদের হাত পূর্ণ ছিল যা কোনভাবেই অটোগ্রাফ দেয়া সম্ভব ছিল না।

সিরিজের ফাইনাল ও শেষ ম্যাচ জেতার পর লডারহিল সেন্ট্রাল ব্রোয়ার্ড রিজিওনাল পার্কের গ্যালারিতে থাকা সব সমর্থকদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করতে পুরো মাঠ ঘুরেন দলের সদস্যারা।

ফেসবুক পোস্টে সাকিব আরও বলেন, আমরা সর্বদাই আমাদের ভক্তদের সঙ্গে সময় কাটাতে পছন্দ করি। তাদের সঙ্গে ছবি তুলে, অটোগ্রাফ দিয়ে মুহূর্তগুলো ভাগ করে নেয়ার চেষ্টা করি। কিন্তু ভক্তদেরও বুঝতে হবে যে, আমরাও মানুষ। আমরা মাঠে একটা বিজয় অর্জনের জন্য প্রাণপণ লড়াই করি। আমাদের কি ব্যস্ত কিংবা ক্লান্ত অনুভব করার অনুমতি নেই?

তিনি বলেন, আমরা আপনাদের সমর্থন বুঝি ও সবসময় প্রশংসা করি। চেষ্টা করি আপনাদের সমর্থনের প্রতিদান আমরা মাঠে ভালো খেলার মাধ্যমে দিতে পারি। কিন্তু মাঝে মাঝে আমাদের এই কঠিন পরিশ্রম এবং কঠোর চেষ্টার সঙ্গে সব সময় নিজেকে গুছিয়ে রাখা কষ্টকর হয়ে পড়ে।

ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে একটি ফিফটিসহ ১০৩ রান ও তিনটি উইকেট তুলে নেন। প্রতি ম্যাচেই রান খরচ করায় যথেষ্ট কৃপণও ছিলেন টাইগার দলপতি।

সমর্থকদের উদ্দেশ্যে সাকিব বলেন, আমরা আপনাদের কাছে বিনীত অনুরোধ থাকবে যে আমাদের মধ্যে কেউ যদি আপনাদের অনুরোধ না রাখতে পারি তবে তা ব্যক্তিগতভাবে নিবেন না কারণ আমরা যে পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি তা হয়তো আপনি যা দেখছেন তা থেকে ভিন্ন হতে পারে। হুটহাট আমাদের পরিস্থিতি বিবেচনা না করে কিংবা আমরা কেমন মুডে আছি তা বোঝার চেষ্টা ছাড়াই কোন সিদ্ধান্ত বা মতামত দিতে ব্যস্ত হয়ে পড়বেন না।

৩১ বছর বয়সী এই তারকা বলেন, আমি আমার ভক্তদের অসম্ভব ভালোবাসি এবং আমি মাঠে তাদের জন্যই খেলি সেটা জাতীয় দল হোক কিংবা কোন লিগের জন্য হোক। একই সঙ্গে আমি আমার ভক্তদের কাছ থেকে সম্মান, ভালোবাসা এবং তারা আমাকে বুঝবে এমনটাই আশা করি।

পরিশেষে তিনি বলেন, আমি জানি কিছু মানুষ, যারা হয়তো আমাকে ফলো করে অথবা করে না, কিন্তু সবসময় ছোট ছোট বিষয়ে আমাকে নিচু করতে পছন্দ করে। তাদের উদ্দেশ্যে আমি বলতে চাই, আমাদের থেকে ভালো কিছু প্রত্যাশা করতে হলে এই নিচু মানসিকতা পরিবর্তন প্রয়োজন। প্রত্যেকটা ম্যাচে আমরা এমনিতেই অনেক বেশি চাপে থাকি, নতুন কোন চাপ প্রয়োগ না করার জন্য বিশেষ অনুরোধ করা হলো। আর এই মানসিকতার বাইরে যারা আছেন আমি সর্বদা তাদের পাশে আছি।

টুডে সংবাদ/ইমানুর রহমান