বগুড়ায় মুগ ডালে কৃষকের হাসি

নিজস্ব প্রতিনিধি,বগুড়া : বগুড়ার চরাঞ্চলের কৃষকেরা মুগ ডাল ঘরে তোলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এবার ফলন ভালো হওয়ায় তাদের চোখেমুখে খুশির ফুটেছে।

কম খরচে মুগ ডালের ভালো ফলন পাওয়া যায়। অথচ কয়েক বছর আগেও এ অঞ্চলের কৃষকেরা এটি চাষ করতেন না। এখন চরবাসীর অনেকেই ঝুঁকে পড়েছেন।

জানা গেছে, বগুড়ার ধুনট উপজেলার বৈশাখী, সারিয়াকান্দি উপজেলার বোহাইল, ধারাবর্ষা, কাজলা, আওলাকান্দি চরসহ আশপাশের সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর উপজেলার শানবান্ধা, মেখোলা চরে পাকা মুগ ডাল শোভা পাচ্ছে।

কেউ কেউ মুগ ডাল ঘরে তুলতে শুরু করেছে। ইরি-বোরো ধান কাটার পরই পতিত ঘাসের জমিতে এই ডালের চাষবাদ করা হয়েছে।

বৈশাখী চরের গিয়াস উদ্দিন জানান, অনেকটা বিনা খরচেই মুগ ডালের চাষ করা যায়। চাহিদা যেমন, দামও বেশি। তাই এখন অনেকেই এই ডালের চাষ করছেন।

তিনি নিজেও এক বিঘা জমিতে মুগ ডালের চাষ করেছেন। ঘরের তোলার পর প্রতিমণ ডাল সাড়ে ৪ হাজার টাকা বিক্রি করা যায়।

চাষি হজরত আলী জানান, চরাঞ্চলে মুগ ডালের ফলন ভালো হয়। এই ডাল চাষের বড় সুবিধা, রোগ-বালাই কম হয়। ফলে সার-ঔষুধ লাগে না বললেই চলে।

বগুড়া কৃষি অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক প্রতুল চন্দ্র জানান, মার্চ মাসে মুগ ডালের বীজ বোনা হয়। ৯০ দিনেই ফসল ঘরে ওঠে। চরের পলি জমিতে মুগ ডাল ভালো হয়।

তিনি আরও জানান, মুগ চাষে জমির উর্বরতা বাড়ে। প্রতি হেক্টরে ১.০৫ মেট্রিক টন ডাল উৎপাদন করা সম্ভব।

টুডে সংবাদ/ইমানুর রহমান