ধর্ষণ থেকে বাঁচলেও প্রাণ বাঁচাতে পারলেন না গৃহবধূ

টুডে সংবাদ প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলায় সম্ভ্রম বাঁচাতে গিয়ে চলন্ত বাসের চাকায় পিষ্ট হয়েছেন গার্মেন্টস কর্মী শিউলী বেগম (২৮)। বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর বাইপাসের বাওয়ার কুমারজানী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শিউলী বেগম মির্জাপুর পৌর শহরের পোস্টকামুরী চরপাড়া গ্রামের শরীফ খানের স্ত্রী। তিনি মির্জাপুরের গোড়াই শিল্পাঞ্চলের কমফিট কম্পোজিট নিট লি. মিলের কর্মী বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে শিউলী বেগম কর্মস্থলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু কারখানার শ্রমিকদের জন্য নির্ধারিত বাস চলে যাওয়ায় শিউলী বেগম অন্য একটি বাসে উঠে পড়েন।

এ সময় যাত্রী বেশে থাকা দুর্বৃত্তরা শিউলী বেগমের শ্লীলতাহানির চেষ্টা করলে বাসের জানালা দিয়ে মাথা বের করে চিৎকার করতে থাকেন তিনি। ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে শিউলী বেগম চলন্ত বাস থেকে পড়ে গিয়ে ওই বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে মারা যান। বাসের পেছনের গ্লাসে ‘ভৌমিক পরিবহন’ লেখা ছিল বলে প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বাওয়ার কুমারজানী গ্রামের বাসিন্দা শিউলী বেওয়া জানান, ঘটনার কিছু সময় আগে তিনি ওই চলন্ত বাসে এক নারী যাত্রীকে বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করতে শুনেছেন। এর কিছুক্ষণ পরই অল্প দূরে চলন্ত বাস থেকে পড়া নিহত ওই নারীকে দেখতে পান।

মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মিজানুল হক বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ বিষয়ে হাইওয়ে পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নেবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

টুডে সংবাদ/ইমানুর রহমান
প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com ভিজিট করুন,লাইক দিন এবং শেয়ার করুন।