লজ্জায় ডুবলো টাইগাররা

স্পোর্টস ডেস্ক : টেস্টে নিজেদের সর্বনিম্ন রানের লজ্জায় ডুবলো টাইগাররা। গতকাল অ্যান্টিগায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে মাত্র ৪৩ রানে গুঁড়িয়ে যায় বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস। টেস্টে বাংলাদেশের সর্বনিম্ন রানের রেকর্ডটি ছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। ২০০৭এ কলম্বোতে ৬২ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। গতকাল প্রথম ঘণ্টায়ই পাঁচ উইকেট খুইয়ে বসে সাকিব বাহিনী। দলীয় মাত্র ১৮ রানে পঞ্চম উইকেট খোয়ায় বাংলাদেশ।

নিজের শুরুর চার ওভারে মাত্র ৬ রান খরচায় একাই পাঁচ উইকেট নেন ক্যারিবীয় পেসার কেমার রোচ। আর ১৫.৩তম ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩৫.৮। ব্যাট হাতে ‘ডাক’ মারেন বাংলাদেশের তিন অভিজ্ঞ তারকা মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তামিম ইকবালকে দিয়ে শুরু। মাত্র ৪ রানে কেমার রোচের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন চার হাজারি ক্লাবের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে থাকা বাংলাদেশি ওপেনার। আর ওয়ানডাউন ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক করেন ১ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামে টাইগাররা। নতুন কোচ স্টিভ রোডসের এটি প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট।

অ্যান্টিগার স্যার ভিভ রিচার্ডস স্টেডিয়ামে আগে কখনো খেলেনি বাংলাদেশ দল। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল এই মাঠে ৫ ম্যাচ খেলেছে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। যেখানে ক্যারিবীয়ানরা উপ-মহাদেশের অন্যতম ক্রিকেট শক্তি ভারতের বিপক্ষে পেয়েছে একমাত্র জয়। এছাড়াও অন্য দলের বিপক্ষে আছে তিন ড্র। সবুজ উইকেটে ভারতের বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানরা হোঁচট খেয়েছে। যদিও তারা বিরাট কোহলির ডাবল সেঞ্চুরিতে ৬’শর কাছাকাছি রান করেছিল তারপরও হার এড়াতে পারেনি। ২০১৬তে জেসন হোলডারের দল জয় পেয়েছিল ইনিংস ও ৯২ রানের বড় ব্যবধানে। এ মাঠে মাত্র ২ ম্যাচের চার ইনিংসে সর্বাধিক ১২ উইকেটের শিকারি কেমার রোচ। এ ক্যারিবীয়ান পেসার দলে আছেন টাইগারদের বিপক্ষেও। তবে ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেছিলেন ‘উইকেট নিয়ে খুব বেশি দুর্ভাবনার কিছু নেই। নিজেদের সহজাত খেলাটা খেলতে হবে। সেটুকু পারলেই তা দলের জন্য যথেষ্ট হবে।’

অবশ্য বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিবের এ আত্মবিশ্বাসের কারণ দলের ব্যাটসম্যানদের উপর আস্থা। তিনি মনে করেন তামিম, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহীম মাহমুদুল্লাহরা দারুণ প্রস্তুত। নিজের এ আস্থা নিয়ে সাকিব বলেন, ‘সাধারণত ক্যারিবীয়ান উইকেটের চেয়ে ঘাস একটু বেশিই এই উইকেটে। তবে ছেলেরা চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত। আমার ধারণা, উইকেট গতিময় হবে, বাউন্সও থাকবে। আমাদের দ্রুত মানিয়ে নিতে হবে।’ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সবশেষ সিরিজ থেকেই একটা ধারণা পাওয়া গিয়েছিল, বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজেও উইকেট হবে পেস সহায়ক। দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে যদিও উইকেট ছিল ব্যাটিং সহায়ক, তবে টেস্টে ঠিকই রাখা হয়েছে বাউন্সি উইকেট। এমন উইকেটই পাবেন সাকিব ধারণা করেছিলেন আগে থেকেই। সাকিব বলেন, ‘উইকেট সবুজ। বাউন্সিও হবে। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা এতে অভ্যস্ত নন। তবে এমন কিছুর প্রত্যাশা আমাদের ছিল। শ্রীলঙ্কা সিরিজটি আমরা দেখেছি। সেভাবেই প্রস্তুতি নিয়েছি। চ্যালেঞ্জ নিতে আমরা মুখিয়ে আছি।’

কেমার রোচ ছাড়াও ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে আছেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। তবে ২০১৭ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ২৩শে জুন পর্যন্ত ১২টি টেস্ট খেলেছেন গ্যাব্রিয়েল। ২৩.৬৬ গড়ে ও ৪৪ স্ট্রাইক রেটে এ সময়ের মধ্যে নিয়েছেন ৫৪টি উইকেট। ইনিংসে ৫ উইকেট পেয়েছেন ৩ বার, ম্যাচে ১০ উইকেট একবার। ক’দিন আগেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে ১৩ উইকেট নিয়ে দলকে জিতিয়েছেন। তবে সাকিব বলেন, ‘শ্রীলঙ্কার সঙ্গে টেস্ট সিরিজ দেখেছি আমরা। জানি ওদের বোলিং আক্রমণ কেমন। দারুণ কিছু বোলার আছে ওদের। তাদের খেলতে হলে আমাদের সেরাটা দিতেই হবে। এটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ।’

প্রায় ১০ মাস পর বিদেশের মাটিতে টেস্ট খেলতে নামছে বাংলাদেশ। এর আগে দেশেও টেস্ট খেলেছেন ৫ মাস আগে। তাই লম্বা ফরমেটের প্রস্তুতি খুব একটা নিতে পারেননি সাকিব বাহিনী। এমনকি অধিনায়ক নিজেও প্রায় ১১ মাস পর মাঠে নামছেন সাদা পোশাকে। যদিও তিনি মনে করেন যেটুকু সময় পেয়েছে তাতে তাদের প্রস্তুতি খারাপ হয়নি। তিনি বলেন, ‘গত ২-৩ মাসে খুব বেশি ক্রিকেট খেলিনি আমরা। তবে দেশে বেশ ভালো প্রস্তুতি নিয়েছি। এখানেও সপ্তাহখানেক কাটিয়ে ফেলেছি, আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছি। দুই দিনের ম্যাচ খেলেছি। অনুশীলন সেশন ভালো হয়েছে। আমার মনে হয়, চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত ছেলেরা।’

টুডে সংবাদ/ইমানুর/উদয়া