রংপুরের ব্রিজে ফাটল,দুর্ভোগে পড়তে পারে উত্তরাঞ্চলসহ সারাদেশের মানুষ

ইমানুর রহমান : দেশ স্বাধীনের আগে নির্মিত রংপুরের অন্যতম প্রবেশদ্বার রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের তামপাট দমদমা ব্রিজে একাধিক ফাটল দেখা দিয়েছে। যে কোনো মূহুর্তে ব্রিজটি ধসে ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। এতে করে সারাদেশের সাথে এ অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশংকা করছেন পরিববহন ব্যবসায়ীরা।

এদিকে দুর্ঘটনা এড়াতে ব্রিজের নিচে বালিভর্তি বস্তা ঠেস দিয়ে রেখেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ব্রিজটির ফাটল স্থানে লাল রং দিয়ে চিন্থিত করা হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঝুঁকিপুর্ণ এই ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন সারাদেশের বিভিন্ন জেলার হাজার হাজার ভারী যানবাহন চলাচল করে। ব্রিজটি ভেঙ্গে পড়লে যেকোনো মুহুর্তে রংপুর বিভাগ ও উত্তরাঞ্চলের সাথে রাজধানীসহ সারাদেশের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাবে। দুর্ভোগে পড়বে উত্তরাঞ্চলসহ সারাদেশের বিভিন্ন পেশার মানুষ।

জানা গেছে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে দমদমা ব্রিজটিতে ফাটল দেখা দেয়। এতে দ্রুত সময়ের মধ্যে দরপত্র আহবান করে সড়ক বিভাগ। ২৩ লাখ টাকার বাজেটে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান দু’মাস সময়ে বালিভর্তি বস্তা দিয়ে ব্রিজের নিচে ঠেস দেয়ার কাজ সম্পন্ন করে মার্চ মাসে।

৩২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সৈয়দ মাহবুব মোর্শেদ শামীম অভিযোগ করে টুডে সংবাদ কে বলেন, ব্রিজের ফাটল ঠেকাতে দায়সারা কাজ করছে সড়ক বিভাগ। কাজ শেষ হতে না হতে আবারো ফাটল দেখা দিয়েছে।

অন্যদিকে সাবেক কাউন্সিলর আবুল কাশেম টুডে সংবাদকে বলেন, ব্রিজের নিচে সারি সারি বস্তা ভর্তি বালু দিয়ে ঠেস দেয়া হয়েছে। বন্যায় এ সব বস্তা সরে গেলে এই ব্রিজটি ভেঙ্গে যাওয়ার আশংকা রয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ এই ব্রিজটি বর্তমানে হুমকির মুখে রয়েছে। যে কোনো সময়ে এটি ধসে পড়লে সারাদেশের সাথে রংপুর অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাবে।

স্থানীয় এলাকাবাসী টুডে সংবাদকে জানান, ঝুঁকিপূর্ণ এই দমদমা ব্রিজটির ফাটল মোরামতের জন্য ২৩ লাখ টাকার বাজেট নিয়ে দায়সারা কাজ করছে সড়ক বিভাগের ঠিকাদার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের এক কর্মচারী টুডে সংবাদকে বলেন, ব্রিজের ফাটল মেরামতে আমাদেরকে যেভাবে কাজ করতে বলা হয়েছে, সেভাবেই কাজ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সওজ সড়ক বিভাগ রংপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাজেদুর রহমান টুডে সংবাদকে বলেন, ব্রিজটি মেরামতের জন্য ২৩ লাখ টাকা বরাদ্দ ছিল। সে কাজ শেষ করেছে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। তবে নতুন করে ব্রিজ নির্মাণের জন্য টেন্ডার আহবান করা হয়েছে।

রংপুরের জেলা প্রশাসক এনামুল হাবীব জানিয়েছেন, সড়ক বিভাগের কর্মকর্তার সাথে কথা বলে দ্রুত ব্রিজটি মেরামতের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

টুডে সংবাদ/জাকিয়া/সু.মু
প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com ভিজিট করুন,লাইক দিন এবং শেয়ার করুন।