বক্তব্য প্রত্যাহার না করলে মতিয়া চৌধুরীকে জাবিতে অবাঞ্চিত ঘোষণা

আরিফুল ইসলাম আরিফ, জাবি প্রতিনিধি: সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের নিয়ে জাতীয় সংসদে দেয়া বক্তব্য তিন দিনের মধ্যে প্রত্যাহার করে জাতির কাছে ক্ষমা না চাইলে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষার্থীরা।
আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব এক সমাবেশে এই ঘোষণা দেন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, জাবি শাখার আহ্বায়ক খান মুনতাসির আরমান।
তিনি বলেন, আমরা বর্তমান প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে বেড়ে উঠেছি। মতিয়া চৌধুরী আমাদের সম্পর্কে যে বক্তব্য দিয়েছে আমাদের জন্য তা অত্যন্ত অপমানজনক।
সমাবেশ শেষে শতাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে একটি বিক্ষোভ মিছিল ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবার কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এসে শেষ হয়।
এদিকে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ থেকে আগামী তিন দিনের সকল প্রকার ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছে জাবি শিক্ষার্থীরা। জাবির বিভিন্ন অনুষদ সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, অনুষদ এবং বিভাগ খুললেও শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নেই। অনুষ্ঠিত হয়নি কোনো ক্লাস-পরীক্ষা।
প্রসঙ্গত, কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের সম্পর্কে সোমবার কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী সংসদ অধিবেশনে বলেন, “পরিষ্কার বলতে চাই, মুক্তিযুদ্ধ চলছে, চলবে। রাজাকারের বাচ্চাদের আমরা দেখে নেবো। মতলববাজ, জামায়াত-শিবির, তাদের এজেন্টদের বিরুদ্ধে সামান্য শৈথিল্য দেখানো হবে না।”
তিনি আরো বলেন, “মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানেরা সুযোগ পাবে না, রাজাকারের বাচ্চারা সুযোগ পাবে? তাদের জন্য মুক্তিযোদ্ধা কোটা সংকুচিত হবে? রাজধানীকেন্দ্রিক একটি এলিট শ্রেণি তৈরির চক্রান্ত চলছে।”