জয়ের জন্য ভারতের যে দুর্বলতা কাজে লাগাতে পারে বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক : টি-টোয়েন্টিতে ভারতের মুখোমুখি হওয়া মানেই যেন একরাশ হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়া। দূর অতীতের কথা ভুলেই থাকা যাক, ২০১৬ এশিয়া কাপের দুটি ম্যাচ আর বিশ্বকাপের ম্যাচটির কথা অনেক দিন মনে থাকবে বাংলাদেশের। নিদাহাস ট্রফিতেও ভারতের বিপক্ষে পরপর দুই ম্যাচে হেরেছে বাংলাদেশ। সব মিলিয়ে ৭ ম্যাচ খেলে প্রতিটিতেই হার বাংলাদেশের। তবে আজ ফাইনালে জয়ের আশা কি দেখবেন না সাকিব-তামিমরা?

অবশ্যই জয়ের স্বপ্ন দেখে বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো কোনো ত্রিদেশীয় সিরিজ জেতার পথে আজ ইতিহাস গড়তেই হবে বাংলাদেশকে। আর সে ক্ষেত্রে ভারতের কিছু দুর্বলতার সুযোগ নিতে হবে বাংলাদেশকে। দেখে নেওয়া যাক ভারতের কোন কোন দুর্বলতা বাংলাদেশ নিজেদের পক্ষে নিতে পারে—

১. পাওয়ার প্লে
রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান—টি-টোয়েন্টিতে বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকর ওপেনিং জুটি। সর্বশেষ ম্যাচে ৭০ রানের জুটিও গড়েছেন এ দুজন। কিন্তু পাওয়ার প্লেতে ঠিক সেভাবে ঝড় তুলতে পারছে না ভারত। টুর্নামেন্টে এখনো পর্যন্ত প্রথম ৬ ওভারে সর্বোচ্চ ৫০ রান তুলেছে ভারত, সেটাও ২ উইকেট হারিয়ে। এদিক থেকে বাংলাদেশ এগিয়ে আছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৭৪ রান তুলেছিল বাংলাদেশ। ফাইনালে প্রথম ৬ ওভারে যতটুকু সম্ভব এগিয়ে থাকতে হবে বাংলাদেশকে।

২ পেস বোলিং
নিজেদের মূল পেস আক্রমণকে বিশ্রাম দিয়েছে ভারত। নিদাহাস ট্রফিতে ব্যাকআপ পেস বোলারদের একটু বাজিয়ে দেখতে চেয়েছে তারা। শার্দূল ঠাকুর, বিজয় শংকর, মোহাম্মদ সিরাজ কিংবা উনাদকাট উইকেটও পাচ্ছেন। তবে রান আটকানোর কাজে তাঁরা ভয়ংকর ব্যর্থ। প্রায় প্রতি ম্যাচেই এই পেসারদের বলে দ্রুতগতিতে রান তুলেছে প্রতিপক্ষ। শার্দূল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৩.৩ ওভারে ৪২ রান দিয়েছেন। মোহাম্মদ সিরাজ বাংলাদেশের বিপক্ষে তো ফিফটি-ই (৪ ওভারে ৫০) করে ফেলেছিলেন।

৩. ‘সুন্দর’-নির্ভরতা
দুর্দান্ত বল করছেন ওয়াশিংটন সুন্দর। ৪ ম্যাচে মাত্র ৯৪ রান দিয়ে ৭ উইকেট পেয়েছেন। ১৩.৪২ গড়ে উইকেট পেয়েছেন। এর চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ, ওভারপ্রতি মাত্র ৫.৮৭ রান দিয়েছেন এই অফ স্পিনার। প্রায় প্রতি ম্যাচেই প্রতিপক্ষের রান তোলার গতি আটকে দিয়েছেন এই স্পিনার। কিন্তু ভারতের অন্য বোলাররা অতটা ভালো করছেন না। সুন্দরের ৪ ওভারেই ম্যাচ অনেকটা হেলে পড়ছে ভারতের দিকে। কিন্তু এই অফ স্পিনারের বাজে দিনে ভারতের বোলিং দুর্বলতার ফায়দা নেওয়া সম্ভব। সিরিজের প্রথম ম্যাচেই শ্রীলঙ্কা সেটি দেখিয়ে দিয়েছে।

৪. অফ স্পিনে দুর্বলতা
সিরিজে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা ভালোই করছেন। শিখর ধাওয়ান, মনীশ পান্ডে আর রোহিত শর্মা ছন্দে আছেন। কিন্তু চার ম্যাচেই প্রতিপক্ষের অফ স্পিনের বিপক্ষে একটু বাড়তি সতর্ক হয়ে খেলতে দেখা গেছে তাঁদের। শ্রীলঙ্কার আকিলা ধনঞ্জয়া, দানুশকা গুনাতিলকা আর বাংলাদেশের মেহেদী হাসান মিরাজ ভারতের বিপক্ষে বেশ ভালো ফিগার নিয়ে বোলিং শেষ করেছেন। আজ তাই মিরাজের সঙ্গে মাহমুদউল্লাহর হাতেও বল দেওয়া উচিত বাংলাদেশের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের দুই অফ স্পিনার ৮ ওভারে ৪৫ রান দিয়েছিলেন।

(টুডে সংবাদ/তা.সু.পি)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com