নিয়ন্ত্রণহীন মাইকিং কলাপাড়াতে বেড়েই চলেছে

কলাপাড়া,পটুয়াখালী, প্রতিনিধি : প্রতি সপ্তাহে ডক্টর আসা থেকে শুরু করে ৩০০ টাকার এনার্জি লাইট ১০০ টাকা তো নিত্য দিনের সাথী।
এখন এলাকায় ইঁদুরের ঔষধ, কাপড় ধোঁয়ার গুরা সাবান এবং বিভিন্ন মোবাইল অপারেটারের সিমের  মেলার নামে  মাইকিং করা হচ্ছে! প্রতি সপ্তাহে কিসের মেলা?এখানেও একটা প্রশ্ন থেকে যায় বৈকি!!
এরপরে আছে বিভিন্ন মতের ধর্মীয় মাহফিলের মাইকিং। তাঁরা ফুল ভলিউমে  দুইটা করে মাইক ব্যবহার করে।
এতে বেড়ে চলছে শব্দ দূষণ। শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণে,আইন প্রয়োগ এখন অত্যাবশ্যকীয় বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।
শব্দ দূষণ নীরব ঘাতকের মতো প্রতিদিন একটু একটু করে আমাদের কর্মশক্তিকে নষ্ট করছে। শব্দ দূষণের প্রভাবে প্রতিদিন সমাজে শত শত বিশৃঙ্খল মুহূর্তের সৃষ্টি হচ্ছে। এর ফলে শরীরের এমন কোনো অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ নেই যা আক্রান্ত হয় না। এতে তাত্ক্ষণিকভাবে আক্রান্ত হয় মানুষের কান। মানুষের শ্রবণশক্তি হ্রাস, বধিরতা,হৃদরোগ, মেজাজ খিটখিটে হওয়া, বিরক্তি সৃষ্টি, শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় বিঘ্ন ঘটাচ্ছে।
এই দূষণের ফলে যাদের হার্টে সমস্যা আছে বিশেষ করে যাদের ওপেন হার্ট সার্জারি করা আছে, তাদের জন্য খুবই বিপদজনক হতে পরে।শব্দদূষণ প্রতিরোধ করতে প্রয়োজনীয় আইন ও বিধিমালা সবই আছে কিন্তু বাস্তবে তার প্রয়োগ নেই। নেই আমাদের সচেতনতা।
তাই কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়ের সদয় দৃষ্টি কামনা করেছে সাধারন মানুষ।