আগৈলঝাড়ায় ব্রিজ ভেঙ্গে যাওয়ায় চরম দূর্ভোগে পথচারীরা

অপূর্ব লাল সরকার,আগৈলঝাড়া (বরিশাল) : বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার রাজিহার-গৌরনদী সড়কে একটি আয়রণ ব্রিজ ভেঙ্গে যানবাহন চলাচল বন্ধের কারণে পণ্য পরিবহন বন্ধ হওয়ায় চরম সমস্যায় পরেছে ব্যবসায়ী ও যাত্রীরা। সংশ্লিষ্ট বিভাগ সেটি সংস্কার বা নতুন ব্রিজ নির্মাণের কোন উদ্যোগ অদ্যাবধি গ্রহণ করেনি।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীসূত্রে জানা গেছে, আগৈলঝাড়া উপজেলার রাজিহার থেকে গৌরনদী ও টরকী বন্দরে যাতায়াতের একমাত্র সড়কের রাংতা গঙ্গাস্নান এলাকায় এলজিইডি বিভাগ একটি আয়রণ ব্রিজ নির্মাণ করে। গত একবছর আগে ওই ব্রিজের ঢালাই খসে রড বেরিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যানবাহন ও লোক চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়ে আসছে। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজনের উদ্যোগে ঢালাইয়ের খসে পরা জায়গায় কাঠের পাটাতন দিয়ে কোন রকম ইজিবাইকসহ হালকা যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থা চালু রাখা হয়েছিল। এদিকে গতবছর ব্রিজের নীচে কৃষকের স্তুপ করে রাখা খড় ও পান বরজের পরিত্যক্ত বাঁশের চেরায় আগুন ধরিয়ে দেয় অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা। ওই আগুনের কারণে আয়রণ ব্রিজের স্ট্র্যাকচার নরম হয়ে বেঁকে যায়। ফলে একবছর যাবৎ ওই ব্রিজের উপর দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ থাকলেও সংশ্লিষ্ট এলজিইডি বিভাগ সেটি সংস্কার বা নতুন ব্রিজ নির্মাণের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি।

অতি সম্প্রতি ব্রিজের একাধিক স্থানের ঢালাই খসে পরে রড বেরিয়ে যাওয়ায় ব্রিজ দিয়ে হালকা যানবাহন চলাচলও বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে চরম সমস্যায় পরেছেন টরকী ও গৌরনদী বন্দর থেকে পণ্য পরিবহন করতে না পারা ব্যবসায়ী ও সড়কে যাতায়াতকারী সাধারণ যাত্রীরা।

উপজেলা প্রকৌশলী রাজকুমার গাইন যানবাহন চলাচল বন্ধ ও সমস্যার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আয়রণ ব্রিজ পুন:স্থাপনের জন্য প্রকল্প পরিচালকের কাছে চিঠি দেয়া হয়েছে। প্রকল্প অনুমোদন হলেই ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে। তবে কবে নাগাদ প্রকল্পটি অনুমোদন হয়ে বরাদ্দ পাওয়া যাবে সে বিষয়ে তিনি বলতে পারেন নি। প্রকল্প অনুমোদন ও বরাদ্দ পাবার আগে যান চলাচলের বিকল্প ব্যবস্থায় কোন ব্যবস্থাও গ্রহণ করেনি এলজিইডি বিভাগ। এলাকার লোকজন ও ভুক্তভোগীরা ব্রিজটির কারণে যাতায়াত সমস্যার সমাধানের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য,এলজিআরডি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি,

টুডে সংবাদ/ইমানুর রহমান