ঝিনাইদহের সাবেক সাংসদ সফিকুল ইসলাম অপুর নির্বাচনী পথসভায় জনতার ঢল

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়ার সহ-সভাপতি সাবেক সংসদ সফিকুল ইসলাম অপু সোমবার সকাল থেকে আমতলা নামক স্থান হতে তাঁর সমর্থক কর্মী বাহিনী নিয়ে সারাদিন ব্যাপী হরিনাকুন্ডু উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের নির্বাচনী পথসভায় বক্তব্য দিয়ে ব্যস্ত সময় পার করেন। বিশাল বহর নিয়ে যেখানেই উপস্থিত হয় সেখানেই তাঁর পথসভা জনসভায় পরিণত হয়। এই সময় তিনি বক্তব্য রাখেন সড়াবাড়িয়া, শ্রী ফলতলা, চুলকানি বাজার, হরিনাকুন্ডুু উপজেলার চত্বর, তাহেরহুদা বাজার ও ভবানিপুর বাজার প্রাঙ্গণ সহ বিভিন্ন জাইগার পথ সাভায়। এই সময়ে তাঁর সাথে ছিল ঝিনাইদহ সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি খান মোঃ ওয়াজেদ আলী, সাধারন সম্পাদক জি এম রাশিদুল আলম রশিদ, হরিনাকুন্ডুু উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মশিউর রহমান জোরদ্দার, হরিনাকুনমবংুর পৌর মেয়র শাহিনুর আলম রেন্টু, যুগ্ন আহাবায়ক আব্দুল্লা মারুফ, হরিনাকুন্ডু আওয়ামীলীগ নেতা জেলা পরিষদ সদস্য আশরাফুল হক জুয়েল, তাহেরহুদা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনজুর, চাঁদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ফজলু মালিথা, তাহেরহুদা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি সাব্বির আহামেদ, ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি খাইরুল ইসলাম, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার যুবলীগ সভাপতি বিল্পব, হরিনাকুন্ডু উপজেলার ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাজু আহামেদ সহ ঝিনাইদহ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের অসংখ্য নেতা কর্মী ও সমর্থক বৃন্দ। এ সময়ে সাবেক সংসদ সফিকুল ইসলাম অপুর বলেন ২০১৪ সালের নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে সংসদ সদস্য না হওয়ায় ঝিনাইদহ এবং হরিনাকুন্ড উপজেলা উন্নয়নের রোড ম্যাপ হতে সিটকে পড়েছে। আগামী ২০১৯ সালের নির্বাচনে নেত্রী আমাকেই মনোনয়ন দেবে। আমি নেত্রির নির্দেশেই আপনাদের সাথে দেখা করতে আসেছি। ২০১৪ সালে একটি মহল ষড়যন্ত্র করে আমাকে ফেল করিয়েছে। আজকের এই পথ সভায় জনতার ঢল প্রমান করে হরিনাকুন্ডুর আওয়ামীলীগ ঐক্যবদ্ধ আছে। তাই আগামীতে আপনারা নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালি করে দেশের উন্নয়নের রডম্যাপ বাস্তবায়নে আপনাদের সহযোগিতা কামনা করি।