বোকা না হয়েই কীভাবে কাউকে ভালোলাগার কথা বলবেন

লাইফস্টাইল ডেস্ক : গাছের ডালপালা থেকে আগুন জ্বালানো বা চাঁদে রকেট পাঠানোর চেয়ে কাউকে ডেটিংয়ের বা প্রেমের প্রস্তাব দেওয়াটা বস্তুনিষ্ঠভাবে একটু কম কঠিনই বটে।
তথাপি মানব ইতিহাসের পরিক্রমায় আমরা ইতিমধ্যেই প্রথম দুটি বিষয় ভালোভাবেই রপ্ত করতে পেরেছি।

কিন্তু ভালোবাসার সম্পর্ক স্থাপনের বিষয়টি এখনো বেশ জটিল একটি এলাকা হিসেবেই বিবেচিত হয়।
এর কারণ হয়তো এই যে, কাউকে ভালোবাসার কথা জানানোর একমাত্র সঠিক কোনো উপায় নেই। তবে এই কাজ করতে গিয়ে নিজেকে বোকা না বানিয়েই কাজটি করার উপায় রয়েছে।
“ইটস ওকে টু স্লিপ উইথ হিম অন দ্য ফার্স্ট ডেট” নামের বইটির লেখক সম্পর্ক বিষয়ক বিশেষজ্ঞ আন্দ্রেয়া সিরট্যাশ বলেন, বিষয়টি পুরোপুরি আত্মবিশ্বাসের মামলা। আপনার ভালোবাসার মানুষটি ট্রেনের কোনো অপরিচিত যাত্রী বা আপনার পুরোনো বন্ধুদের কেউ যেই হোক না কেন তার প্রতি আপনার রোমান্টিক অনুভূতি নির্ভয়ে প্রকাশের পথ বাতলে দিচ্ছেন সিরট্যাশ।
তিনি বলেন:
আপনার ভালো লাগার মানুষটি যদি এমন কেউ হন যার সঙ্গে আপনার এইমাত্র সাক্ষাত হয়েছে তাহলে…
ধরুন ওষুধের দোকানের লাইনে বা বাস স্ট্যান্ডে আপনার কাউকে ভালো লেগে গেল। এ ক্ষেত্রে আপনাকে প্রথমেই যে কাজটি করতে হবে তা হলো তিন একা আছেন কিনা এমন কোনো চিহ্ন খোঁজা। যেমন তার হাতের আঙ্গুলে কোনো আংটি আছে কিনা। যদি আপনি কিছু দেখতে না পান তাহলে তাকে জিজ্ঞেস করতে যাবেন না যে তিনি একা নাকি কারো সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। কথা বললেই আপনি তা জানতে পারবেন।
কথা শুরু করার জন্য প্রথমেই তাকে বলুন, “আমি আপনার সঙ্গে পরিচিত হতে চাই। আপনি কি আমার সঙ্গে পানশালায় যেতে আগ্রহী আছেন?
কথা বলার সময় আত্মবিশ্বাসী এবং বন্ধুভাবাপন্ন ভঙ্গি বজায় রাখুন। আপনার দেহভঙ্গিও খোলামেলা রাখুন। চোখে চোখ রেখে কথা বলুন। এমন পরিস্থিতিতে আপনার কথা বলার ধরন আপনার ভাষার মতোই গুরুত্বপূর্ণ।
আর সবসময় মনে রাখবেন, আপনার সর্বোচ্চ খারাপ পরিণতিটি হতে পারে আপনার প্রস্তাব তারা প্রত্যাখ্যান করবেন এবং আপনি হয়তো আর কখনোই তাদের দেখা পাবেন না।
আপনার ভালোলাগার মানুষটি যদি হয় আপনারই পুরোনো কোনো বন্ধু তাহলে…
একজন অপরিচিত মানুষকে ভালোবাসার কথা বলার চেয়ে একজন পরিচিত মানুষকে ভালোবাসার কথঅ জানানো বেশি কঠিন। কারণ এতে তার সঙ্গে থাকা বন্ধুত্বটিও নষ্ট হয়ে যেতে পারে। আর এ কারণেই সিরট্যাশের পরামর্শ হলো আগে বুঝার চেষ্টা করুন আপনার বন্ধুটিও আপনার প্রতি আগ্রহী কিনা।
উদাহরণত, তারা যদি আসবাব পত্র গুছানোর কাজে সহায়তা করার জন্য আপনাকে আমন্ত্রণ জানায় এবং সারাক্ষণ শুধু তাদের প্রেমে পড়ার গল্প বলে তাহলে আপনি নিজেও ভেবে দেখতে পারেন আপনি তাদেরকে ডেটিংয়ের কথা বলবেন কিনা।
আরেকটি কৌশল হতে পারে, ভালোলাগার মানুষটিকে ডেটিংয়ে যাওয়ার কথা বলার আগে তাকে আপনার ভালো লাগার কথা আকারে ইঙ্গিতে বলা। এবং দেখা যে তারা কীভাবে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। আপনি হয়তো আরো বেশি বেশি ফ্লার্ট করতে পারেন বা তাদেরকে মৃদু স্পর্শ করেও দেখতে পারেন তারা কী প্রতিক্রিয়া জানায়। উদাহরণত, আপনি তাদের পিঠে আলতো করে হাত রাখতে পারেন।
এতে যদি এমনটা মনে হয় যে, তারা ইতিবাচকভাবে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন তাহলে আপনি আরেকটু সামনে অগ্রসর হতে পারেন। আপনি বলতে পারেন, “আপনাকে আমার কিছু কথা বলা দরকার এবং আমি আর দেরি করতে পারছি না। আমি আপনাকে রোমান্টিং ডেটিংয়ে নিয়ে যেতে চাই। এটি কোনো বন্ধুত্বমূলক ডেটিং নয়। এবং দেখতে চাই কী ঘটে। আপনি কি এতে রাজি আছেন?”
আর মনে রাখবেন, সিরট্যাশ বলেন, তর না সওয়াটা খারাপ কিছু নয়। তবে আত্মবিশ্বাস বজায় রাখাটাও বেশ গুরুত্বপূর্ণ। আপনার অনুভূতিগুলো যদি পারস্পরিক বিনিময়মূলক না হয় তাতে আপনি বোকা বনে যাবেন না। এতে আপনি শুধু মানবিক হবেন।

(টুডে সংবাদ/মেহেদী)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com