এইচআরডব্লিউ একটি ভাড়াটে সংগঠন

ঢাকা : যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ভিত্তিক মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)’র প্রতিবেদনকে প্রত্যাখান করে সংগঠনটিকে একটি ভাড়াটে সংগঠন হিসেবে অভিহিত করেছে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ মঙ্গলবার রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) একটি ভাড়াটে সংগঠন। এ সংগঠনটি অর্থের বিনিময়ে প্রতিবেদন তৈরি করে।

জামায়াতের লবিস্ট ফার্মের মাধ্যমে এ সংগঠনটি অর্থ পেয়ে থাকে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধের দায়ে জামায়াত নেতাদের বিরুদ্ধে বিচার চলাকালে জামায়াতের পক্ষে কাজ করার জন্য আদালত অবমাননার দায়ে আন্তর্জাতি যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছিল এ সংগঠনটি।

বন ও পরিবেশ বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান বলেন, এইচআরডব্লিউ সৌদি আরব ভিত্তিক কয়েকটি দেশ থেকে অর্থের বিনিময়ে নারীদের পর্দা প্রথার বিষয়ে মুসলিম ব্রাদার হুডের পক্ষে এবং ইরাকে মানব বিধ্বংসী গ্যাস রয়েছে বলে প্রতিবেদন দিয়েছিল। যা পরবর্তীতে মিথ্যা প্রমান হয়।

এইচআরডব্লিউয়ের বিবৃতির ভিত্তিতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, এ ধরনের একটি ভাড়াটে সংগঠনের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বিএনপির নেতাদের বক্তব্যের মাধ্যমে সে সংগঠনটি প্রচন্ড রাজনৈতিক দেউলিয়াত্ব প্রকাশ পায়।

তিনি বলেন, বিএনপি ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের তাকিয়ে ছিল। কিন্তু সে দেশ দুটির নির্বাচনের পর হতাশ হয়ে বিভিন্ন এনজিওর প্রতিবেদনের ওপর নির্ভর করে তারা বক্তব্য ও বিবৃতি দিচ্ছে।

তিনি বিএনপিকে একটি এনজিও’র বিবৃতি নির্ভর দল হিসেবে উল্লেখ করে আরো বলেন, বিএনপি বর্তমানে বিবৃতি নির্ভর পরগাছা রাজনৈতিক দলে পরিণত হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন নাহার লাইলী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আব্দুস সবুর, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, উত্তর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান ও আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়–য়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারি এইচআরডব্লিউ মানবাধিকার ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতাসহ বিভিন্ন বিষয়ে তাদের বাৎসরিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। (টুডেসংবাদ/এআরএ)