‘বোকা বোকা’ ভুল ছিল টাইটানিক, জুরাসিক ওয়ার্ল্ডে?

60

শিল্প বিনোদন: দেশে বিদেশে তুমুল জনপ্রিয় হয়েছে এই সব ছবি। দীর্ঘদিন ধরে সিনেপ্রেমীদের আলোচনার সিংহভাগ দখলও করেছে এই সব ছবিগুলি। বড় পর্দা কাঁপিয়ে দর্শকদের মনের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে স্থায়ীভাবে। কিন্তু খেয়াল করলে দেখা যাবে এমন সমস্ত সুপার ডুপার হিট সিনেমার স্টোরি লাইনেই রয়েছে গলদ। একদিকে এই সমস্ত ছবির গল্পের জাদু মন ছুঁয়েছে দর্শকদের, আবার অন্যদিকে সেই গল্পের মধ্যেই রয়েছে ‘বোকা বোকা’ কিছু ভুল। ‘আলাদিন’ থেকে শুরু করে ‘টাইটানিক’, ‘জুরাসিক ওয়ার্ল্ড’ থেকে শুরু করে ‘ইটি-দ্য এক্সট্রা টেরেসট্রিয়াল’, তালিকায় রয়েছে এমনই বেশ কিছু সাড়া জাগানো ছবি।

* আলাদিন: হাতে ছিল আশ্চর্য প্রদীপ। যা একবার ঘষলেই হাজির হত জিন। এবং একজনের মাত্র তিনটি ইচ্ছেই পূর্ণ করত সে। আলাদিন এই প্রদীপ পেয়ে তিনটি ইচ্ছে পূর্ণ করতে পেরেছিল। কিন্তু আলাদিন তো প্রদীপটি জেসমিনের হাতেও দিতে পারত। তাহলেই মোট ছয়টি ইচ্ছে পূর্ণ করতে পারত তাঁরা। দেয়নি কেন?

* টাইটানিক: টাইটানিকের ক্লাইম্যাক্সে দেখা যায় রোজকে বাঁচানোর জন্য জ্যাক সমুদ্রে ডুবে মরে যাচ্ছে। কিন্তু অনেকেই হয়তো খেয়াল করেছেন এমনটা না হলেও পারত। কারণ রোজ যে তক্তাটিতে ভেসেছিলেন, তাতে জ্যাকের ওঠার মতো জায়গা ছিল। কিন্তু স্বার্থপরের মতো পুরো তক্তাটাই দখল করে রেখেছিলেন রোজ। তক্তার সাইজটা একটু ছোট করতে বোধহয় ভুলে গিয়েছিলেন পরিচালক।

* ইটি-দ্য এক্সট্রা টেরেসট্রিয়াল: স্টিভেন স্পিলবার্গের ক্লাসিক ছবি ‘ইটি’ দেখে মন ভাল হয়ে যায় না এমন দর্শককে খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। কিন্তু তার মধ্যেও রয়েছে ছোটখাট ভুল। সেটা কী রকম? ইটি কিন্তু উড়তে জানত। তবে কিছুক্ষণের জন্য বোধহয় সেটা ভুলে গিয়েছিল সে। যখন তার স্পেসশিপটি পৃথিবী ছেড়ে চলে যাচ্ছে, আর সে অন্য গ্রহে থেকে যাচ্ছে, তখন কিন্তু একবারও ওড়ার চেষ্টা করেনি ইটি।

* গ্রিস: স্কুলের বন্ধুত্ব, ভালবাসা, বিশ্বাস, সম্পর্কের দুর্দান্ত গল্প ‘গ্রিস’। সমস্ত সিনেমায় অসাধারণ ভাবে উতরে গিয়েও মাধ্যাকর্ষণ শক্তিকে উপেক্ষা করে শেষ দৃশ্যে একটি গাড়ি কী ভাবে উড়ে যেতে পারে তা ভাবলে অবাক হতে হয়।

* দ্য লিটল মার্মিড: লিটল মার্মিড অর্থাৎ এরিয়াল কিন্তু পড়াশোনা জানত। কিন্তু কেন যে সে এরিককে কখনও চিঠি লেখেনি তা জানা যায় না।

* জুরাসিক ওয়ার্ল্ড: সেই জায়েন্ট সুইমিং ডাইনোসরটির কথা মনে আছে তো? যে নাকি বিভৎস হিংস্র ছিল। কিন্তু ভেবে দেখুন সুইমিং পুলের পাশ দিয়ে হেঁটে গেলেও সেই বিশাল ডায়নোসর পর্যটকদের কেন খেয়ে ফেলত না? কেবল সুইমিং পুল থেকে উঠে দুষ্টু ডাইনোসরকেই খেয়ে ফেলল কেন?

* অবতার: আধুনিক টেকনোলজির যুগে সমস্ত মেশিন রিমোট দিয়েই চালনা করা যায়। ‘অবতার’-এ দেখানো হয়েছিল, বিশাল সেই যন্ত্রটা একেবারে অত্যাধুনিক। তা সেটা চালানোর জন্য মানুষের প্রয়োজন হল কেন? এর ফলে তাঁদের মরতেও হয়েছিল।

* দ্য ক্যারাটে কিড: ক্যারাটে নিয়ে একটি মাইলস্টোন সিনেমা বলা যায় এই ছবিকে। কিন্তু তার মধ্যেও রয়েছে গলদ। ফাইনাল ক্যারাটে ম্যাচে নিয়ম ছিল মুখে কিক করা যাবে না। কিন্তু খেয়াল করেছেন কী ড্যানিয়েলসন ঠিক এই কাজটিই করেছিলেন। তাও তিনি চ্যাম্পিয়নশিপ জিতে যান। কী ভাবে সম্ভব এটা?

* জি আই জো: দ্য রাইজ অব কোবরা: আকশন সিনেমার বোধহয় বিজ্ঞানের দিকে খেয়াল না রাখলেও চলে। সেই জন্যই এই ছবির শেষ দৃশ্যে দেখানো হল বরফের চাঙড় দিব্যি ডুবে গেল জলের মধ্যে। কিন্তু বরফ তো জলে ডোবে না!

* আর্মাগেডন: এই ছবিতে দেখা যায়, নাসা গ্রহাণুর মধ্যে একটি বিশাল গর্ত খোঁড়ার জন্য তেল উত্তোলনকারী ইঞ্জিনিয়ারদের স্পেসে নিয়ে যায়। কিন্তু একজন ইঞ্জিনিয়ারকে মহাকাশচারী হিসাবে ট্রেনিং দেওয়ার থেকে একজন মহাকাশচারীকে গর্ত খোঁড়ার ট্রেনিং দেওয়া বেশি সহজসাধ্য নয় কী?

(টুডে সংবাদ/মেহেদী)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com