নতুন সহকর্মীকে যে ১৪ কথা বলতে মানা

50

লাইফস্টাইল ডেস্ক : নতুন লোকের সঙ্গে সাক্ষাৎ কিছুটা ভীতিমূলক বটে। নতুন চাকরি শুরু করার পর যোগাযোগ গড়ে তোলাও আতঙ্কিত করতে পারে। নিজেকে অফিসের নতুন কোনো সহকর্মীর সঙ্গে পরিচয় করানোও একটু ভীতিকর। যদিও আপনি ইতিমধ্যেই চাকরিতে বেশকিছু সময় ব্যয় করে ফেলেছেন।
আপনি যদি শোষোক্ত অবস্থানে থাকেন তাহলে নতুন ব্যক্তিটির সঙ্গে কথা বলার সময়  একটু ভেবেচিন্তে কথা বলুন। তারা হয়তো নার্ভাস হয়ে আছেন। আর আপনার কাজটি হলো তাদের মনকে শান্ত করা।
তাদের মধ্যে স্বাগত অনুভূতি সৃষ্টির জন্য নতুন সহকর্মীদের সঙ্গে আপনাকে অবশ্যই বেশকিছু কথা বলা থেকে বিরত থাকতে হবে:
১. “আপনি দেখতে খুবই আকর্ষণীয়। ডেটিংয়ে যেতে চান?”
এটি পুরোপুরি অযথাযথ কাজ হবে। কোনো বিব্রতকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করার আগে তার সঙ্গে আগে জানাশোনা  গড়ে তুলুন।
২. “ওই লোকদের সঙ্গে মিশবেন না…”
যদিও অফিসের বিশেষ কোনো লোককে আপনার ঘৃণা করার পূর্ণ অধিকার রয়েছে তথাপি এ ধরনের কথা বললে আপনাকে অনেক সংকীর্ণ মনে হবে। নতুন মানুষটিকে অফিসে আসতে না আসতেই কেন আপনি তাকে অফিস রাজনীতিতে জড়িয়ে ফেলবেন?
৩. “আমি আমাদের বস/কম্পানি/সহকর্মীদের/সবকিছুকেই ঘৃণা করি”
নতুন সহকর্মীদের কাছে উচ্চপদস্থদেরকে হেয় করে উপস্থাপন করা ঠিক নয়। কারণ তাদের আনুগত্য সাধারণত বসদের প্রতিই যারা তাকে সবেমাত্র নিয়োগ দিয়েছেন।
৪. “গুডলাক”
আপনি যদি সত্যি সত্যিই এই লোকের সৌভাগ্য কামনা করে থাকেন তাহলে ঠিক আছে। কিন্তু তামাশা করে তাদেরকে মানসিক পীড়া দেবেন না। এটা নীচ কাজ।
৫. “আমি এবার পাহাড়ের দিকে দৌঁড়াব!” বা “আপনি সম্ভবত এই চাকরি নেওয়ার কারণে আক্ষেপ করবেন”
নতুন সহকর্মীদেরকে নিজে নিজেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে দিন তারা ভালো না খারাপ কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন।
৬. “আপনার আগের কম্পানির সর্বশেষ গল্প কী”
এতে আপনাকে জ্বালাতনকারী মনে হবে। তারা যদি তাদের আগের চাকরিতে ঘটে যাওয়া অসুখকর ঘটনাগুলি আপনাকে বলতে চায় তাহলে তারা তা নিজে নিজেই বলবে। যেচে গিয়ে জানতে চাইলে তারা বিরক্ত হবেন।
৭. “আপনি কি এখানে ইতিমধ্যেই অসুখি হয়ে পড়েছেন?”
তারা সবে মাত্র কাজ শুরু করেছেন। আর এখনই এ ধরনের কথা জিজ্ঞেস করাটা মুখোমুখী সংঘাতমূলক এবং অপ্রয়োজনীয়।
৮. “তাদের দাবি এটি একটি নিয়ম/নীতি, কিন্তু বাস্তবে এতে কিছুই যায় আসে না”
নতুন সহকর্মীকে প্রথমদিনেই কোনো নিয়ম ভাঙ্গায় উৎসাহিত করবেন না।
৯. “আপনার বেতন কত?”
নতুন সহকর্মীকে এ ধরনের প্রশ্ন করা পুরোপুরি অশোভনীয়।
১০. “আমার সঙ্গে থাকুন তাহলে আপনার উন্নতি হবে”
কাউকে প্রথম দেখাতেই পৃষ্ঠপোষকতা করতে চাওয়াটা একটু শিশুসুলভ অহংকারের মতো শোনায়। আর আপনি এই লোককে এখনো ভালোভাবে জানেন না। তিনি আপনার পৃষ্ঠপোষকতার উপযুক্ত কিনা তাও আপনি জানেন না।
১১. “এখানে সফল হতে হলে আপনাকে যে জিনিসগুলো জানতে হবে”
এটা নিশ্চিত যে, এ ধরনের তথ্য জানানোটা সত্যিকার অর্থেই উপকারি হতে পারে। কিন্তু একবারে মাত্র সামান্য তথ্য দেওয়াটাই উত্তম। আর নতুন সহকের্মীকে ঘাবড়ে দেবেন না। আর কিছু বিষয় তাদেরকে নিজে নিজেই বুঝতে দিন।
১২. “ওহে… আপনি”
নাম মনে রাখার ক্ষেত্রে সকলেই পটু নন। তবে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা। নতুন সহকর্মীদেরকে অনুমান নির্ভর নাম ধরে না ডেকে বরং তাদেরকে নিজের নামটি আপনাকে স্মরণ করিয়ে দিতে বলুন। আর নতুন হওয়ায় এতে তারা রাগও করবেন না।
১৩. “দুঃখিত”
নতুন সহকর্মীর গায়ে ধাক্কা লাগলে বা তাদের ওপর কফি ফেলে দিলেই শুধু ক্ষমা প্রার্থনা করুন। কিন্তু নতুন সহকর্মীর সঙ্গে দুঃখিত শব্দটি সহজে ব্যবহার করবেন না। আর নয়তো তারা আপনার সম্পর্কে ভূল ধারণা পেতে পারেন।
১৪. কিছুই না
নতুন সহকর্মীকে অগ্রাহ্য করাটা সবচেয়ে রুঢ় আচরণ। তারা যদি আপনার চলার পথে সামনে পড়ে তাহলে তাদের সঙ্গে নম্র আচরণ করুন এবং স্বাগত অনুভূতি ছড়িয়ে দিন।

(টুডে সংবাদ/মেহেদী)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com