২০০০ টাকার নোট ভাঙাতে না পেরে ব্যাংকের সামনে কান্না বৃদ্ধার!

23

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : হাতে নগদ ছ’হাজার টাকা। তবুও রিজার্ভ ব্যাংকের সামনে দাঁড়িয়ে কাঁদছেন ষাটোর্ধ্ব এক মহিলা। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের ৫০০-১০০০ টাকার নোট বাতিলের অভিঘাত!

স্বামীর মৃত্যুর পর যাদবপুরের ষাটোর্ধ্ব মীরা ঘোষের পেনশন কমে দাঁড়িয়েছে ছ’হাজার টাকা। ডিসেম্বরের পেনশন হিসাবে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক থেকে বৃহস্পতিবার তিনটি নতুন ২০০০ টাকার নোট হাতে পেয়েছেন তিনি। অনুরোধ সত্বেও ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ তাঁকে নতুন ৫০০ বা ১০০ টাকার নোট দেননি বলে মীরার অভিযোগ।

ওই ব্যাঙ্কের এক কর্মীর পরামর্শে ২০০০ টাকার নোট ভাঙানোর জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্কে এসেছিলেন ওই মহিলা। বৃহস্পতিবার মীরা বলেন, ‘‘রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ আমাকে জানিয়ে দেন, তাঁদের কাছে নতুন ৫০০ বা ১০০ টাকার নোটের পর্যাপ্ত জোগান নেই। এখন এই টাকা কীভাবে ভাঙাব বুঝতে পারছি না।’’ কথাগুলো বলেই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গেটের পাশে বসে পড়েন তিনি। তার কিছুক্ষণ পর উঠে দাঁড়িয়ে কাঁদতে শুরু করেন মীরা।

বাতিল ৫০০ এবং ১০০০ টাকার নোট বদলানোর জন্য এখন যেতে হচ্ছে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের শাখায়। এদিন বাতিল নোট বদলানোর জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন কয়েক হাজার মানুষ। লাইন দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে দেখে বেলা আড়াইটে নাগাদ লাইনে দাঁড়ানো লোকজনকে ভিতরে ঢুকিয়ে মূল ফটক বন্ধ করে দেওয়া হয়। লাইন এতটাই দীর্ঘ ছিল যে, কাউন্টার পর্যন্ত যেতে অনেককে অপেক্ষা করতে হয় তিন ঘণ্টা।

টালিগঞ্জের বাসিন্দা বাপ্পা মণ্ডল বাতিল কয়েকটি নোট জমা দেওয়ার জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্কের লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন বেলা ১১টা নাগাদ। যখন ২০০০ টাকার একটি নোট হাতে নিয়ে বাইরে বেরোলেন তখন ঘড়ির কাঁটা প্রায় ২টো ছুঁইছুঁই। তাঁর আক্ষেপ, ‘‘তিন ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে পেলাম একটা ২০০০ টাকার নোট। এখন এটা আমি কোথায় ভাঙাব।’’ রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের কাছে নতুন ৫০০ বা ১০০ টাকার নোটের জন্য কাতর আবেদন জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি বলে অভিযোগ বাপ্পার। তাঁর কথায়, ‘‘রিজার্ভ ব্যাঙ্কের অফিসারেরা বলে দিলেন, নোট নেই।’

একই অভিজ্ঞতার কথা শোনালেন নৈহাটির বাসিন্দা তরুণ দত্ত। তিনি ১০ হাজার টাকা মূল্যের বাতিল নোট জমা দিতে এসেছিলেন। তিনিও নতুন ৫০০ এবং ১০০ টাকার নোট চেয়েছিলেন। কিন্তু তাঁকেও ২০০০ টাকার পাঁচটি নোট দেওয়া হয়েছে।

মীরা, বাপ্পা বা তরুণের মতো বহু মানুষের মুখেই এদিন একই অভিযোগ শোনা গিয়েছে।

(টুডে সংবাদ/মেহেদী)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com