শীতের সঙ্গী

14

লাইফস্টাইল ডেস্ক : শীতের আগমন ঘটেছে। চারপাশে রুক্ষতার আঁচড় জানান দিচ্ছে তার আগমনী বার্তা। এই শীতের সঙ্গী হতে গরম কাপড়ের দেখা মিলছে বাজারে। শীত মানেই নানা স্বাদের খাবার আর তার সাথে ফ্যাশনেবল গরম কাপড়। যার মাঝে কান টুপি, হাত মোজা আর মাফলার না হলেই নয়। শীতে রোগ খুব দ্রুত ছড়ায়। তাই এর থেকে মুক্তি পেতে চাই সুরক্ষা। আর এই সুরক্ষার বলয় থাকে আমাদের হাতের কাছেই। যার অপর নাম গরম কাপড়। তবে গরম কাপড় কেবল গরম আর আরাম দায়ক হলেই হবে না। একে হতে হবে ফ্যাশনেবল।

একটা সময় ছিল যখন মানুষ কাল টুপি পরতো শুধুমাত্র শীত নিবারণের জন্য। কিন্তু এখন কেবল শীত না এটি আপনার ব্যক্তিত্ব কেউ ফুটিয়ে তোলে নানাভাবে। বিভিন্ন রকমের কান টুপি আছে বাজারে। মাস্কি টুপি, মাফলার টুপি, ক্যাপের মতো টুপি আর ঝোলা টুপি। শীত নিবারণের ক্ষেত্রে এগুলো হয়ে থাকে উলের তৈরি। এছাড়াও পুরানো ফ্যাশনের টুপির ভেতরে মোটা উলের টুপি, একসঙ্গে মুখ ও মাথা ঢাকার টুপিও আছে বাজারে। কোন টুপিতে মানাবে বেশি, মুখের গড়ন ও ত্বকের রংয়ের সঙ্গে মিলিয়ে কোন টুপি পরলে দেখতে লাগবে ভালো  যাদের চুল ছোট তারা সম্পূর্ণ চুল টুপির ভেতর রাখতে পারেন। অল্প বড় চুল হলে পাশ দিয়েও চুল বের করে রাখা যায়। অনায়াসেই তা টুপির ভেতর গুজে রাখা যাবে।

রং নির্বাচন করা উচিত যা সব ধরনের পোশাকের সঙ্গেই হবে মানিয়ে। যেমন কালো, খয়েরি, নীল রংয়ের যে কোনো টুপি মানিয়ে যাবে যেকোনো পোশাকের সঙ্গে। উৎসবমুখর পরিবেশে লাল, সাদা অথবা সবুজ রংয়ের টুপি পরা যেতে পারে। কারো উজ্জ্বল রং পছন্দ হলে হলুদ বা নিওন টুপিও বেছে নিতে পারেন। সবসময় এমন টুপি বেছে নেওয়া উচিত যা একটু ঢিলে হবে। কারণ টুপিতে ব্যবহৃত ইলাস্টিক কপালের কাছে আঁটসাঁট হয়ে থাকলে তা অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এমনকি কপালে দাগও ফেলতে পারে।

অতিরিক্ত ঠান্ডায় হাত ব্যথা শুরু করে এবং তার সাথে সাথে হাতে রক্ত চলাচল ও ঠিতমতো করে না। ফলে হাত অবশ থেকে শুরু করে নানা রকম চর্মোরোগ ও হতে পারে। তাই শীত থেকে নিজেকে বাঁচানোর আরেকটি অস্ত্র হচ্ছে হাত মোজা। যদিও গরম হোক বা শীত সব সময়ের সঙ্গী হয়ে থাকে পা মোজা তবে এই শীতের আরেক সঙ্গী হচ্ছে হাত মোজা। উলের তৈরি হওয়ায় এর মাধ্যমে ঠান্ডা হাতের ভেতরে প্রবেশ করতে পারে না। ফলে ঠান্ডা থেকে হাত রক্ষা পায়।

শীতের ফ্যাশনে আরেকটি সঙ্গী হচ্ছে মাফলার। তরুণ কিংবা তরুণী সবার পছন্দের তালিকায় আছে এটি। উলের নেট মাফলার থেকে শুরু করে এন্ডি কটন এবং পশমি মাফলারসহ নানা রঙের চেক মাফলার পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। এছাড়া মাফলারে আছে দুটি ধরন। শর্ট এবং লং। মেয়েদের মাফলারগুলো কিছুটা শর্ট হয়ে থাকে ছেলেদের তুলনায়। তাছাড়া উলের চেইল এর মাফলারো খুব গ্রহণযোগ্য বর্তমানে। এর সাথে আছে সুতির মাফলারও। লতাপাতা, গাছপালা, প্রজাপতি থেকে শুরু করে নানা রকমের কারুকাজ করা থাকে এই মাফলারগুলোতে।

দামদর
মাফলারের মধ্যে হাতে বোনা এবং চিকন উলের বিভিন্ন চেক মাফলার পাবেন ১০০ থেকে ৮০০ টাকার মধ্যে। দেশি মাফলারগুলো পাবেন ১০০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে। এছাড়া স্টাইলিশ মাফলার পাবেন ৪০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে। ডিজাইন, কাপড় ও আকারভেদে ১০০ থেকে ৬০০ টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবেন মাফলারগুলো। সিঙ্গেল পার্টের মাফলার পাবেন ১০০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যেই। একটু চওড়া মাফলার শুরু হবে ২০০ টাকা মূল্য থেকে। টুপির মধ্যে পাবেন ফোল্ডিং ১০০ টাকা, মানকি ১৩০ টাকা, মাছি ১৫০ টাকা, চায়না টুপি ১৫০ টাকা থেকে ৬০০ টাকা, খরগোশ টুপি ২০০ টাকা, মেকি ১৫০ টাকা, ক্যাপসিস্টেম কানটুপি ১৮০ টাকা। হাত মোজা পাওয়া যায় ১০০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে।

কোথায় পাবেন
নিউমার্কেট, ইষ্টার্ন প্লাজা, বসুন্ধরা সিটি এবং আপনার আশে পাশের অভিজাত শপিং মলগুলোতে পেয়ে যাবেন আপনার পছন্দের শীতের হাত মোজা। কান টুপি এবং মাফলার।

(টুডে সংবাদ/মেহেদী)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com