মোটরসাইকেল চালিয়ে আড্ডাস্থলে হঠাৎ মন্ত্রী পলক

palak-lrg20161201221855

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি :  মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ মাঠে সন্ধ্যার পর বিভিন্ন গ্রুপে বসে প্রতিদিনের মতো আড্ডা দিচ্ছিলেন ছাত্র-যুবকরা। এসময় মোটরসাইকেল চালিয়ে আড্ডাস্থলে হঠাৎ উপস্থিত স্বয়ং এক মন্ত্রী। অন্ধকারে প্রথমে কেউ তাকে ভালোমতো চিনতেও পারেননি।

তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের এমন আকস্মিক উপস্থিতি সবাইকে চমকে দেয়। যুবকদের সঙ্গে তিনি আড্ডা দেন। গল্প করেন, গল্প শোনেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জ বিজয় মেলা মাঠে লানিং অ্যান্ড আর্নিং মেলার প্রধান অতিথি ছিলেন জুনাইদ আহমেদ পলক। অনুষ্ঠান শেষে ঢাকায় ফেরার পথে প্রটোকল ভেঙে মন্ত্রীর গাড়ি থামে সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ গেটে।

গাড়ি থেকে নেমে মন্ত্রী যোবায়ের নামে এক কলেজ ছাত্রের মোটরসাইকেল নেন। এরপর তাকে পেছনে বসিয়ে জুনাইদ আহমেদ পলক মোটরসাইকেল চালিয়ে মাঠে আড্ডারত যুবকদের কাছে যান। মোটরসাইকেল নিয়ে মাঠে মন্ত্রীর হঠাৎ উপস্থিতি সবাইকে চমকে দেয়।

এসময় জুনাইদ আহমেদ পলকও যুবকদের সঙ্গে আড্ডায় মেতে ওঠেন। তিনি মানিকগঞ্জের ইন্টারনেট গতি, ফেসবুক চালানো, ইন্টারনেট প্যাকেজসহ তথ্যপ্রযুক্তির বিভিন্ন খুটিনাটি বিষয় জানতে চান। যুবকরাও সাবলীলভাবে জেলায় ইন্টারনেট গতি কম থাকাসহ বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরেন। মন্ত্রী আশ্বাস দেন এসব সমস্য সমাধানের।

যাওয়ার সময় মন্ত্রী কলেজছাত্র যোবায়ের সঙ্গে হাসি ঠাট্টার সময় বলেন, আমার গাড়ি ভালো লাগে না। তোমার মোটরসাইকেলের সাথে গাড়ি বদল করি। আমি মোটরসাইকেল নেই, তুমি গাড়ি নাও। এসময় মন্ত্রী যোবায়ের হোসেনের মোবাইল নম্বর নিজের ফোনে সেভ করে তার নম্বর দিয়ে যান।

মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম ছারোয়ার ছানু জানান, তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের মোটরসাইকেল চালিয়ে মাঠে প্রবেশ করা এবং যুবকদের সঙ্গে আড্ডা দেয়া তিনি কাছ থেকে দেখেছেন। মাঠে মন্ত্রী এভাবে হঠাৎ উপস্থিত হবেন তা কারো জানা ছিল না। অনেক পরে প্রশাসনের কর্মকর্তারা বিষয়টি জানতে পারেন বলে জানান তিনি।

(টুডে সংবাদ/উদয়া)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com ভিজিট করুন, লাইক দিন এবং  শেয়ার করুন