যে ভাষাগুলোর অতীত খুঁজে পাওয়া যায় নি!

17

লাইফস্টাইল ডেস্ক : ভাষা একটি সভ্যতার অনেক তথ্যকেই সবার সামনে তুলে আনতে সাহায্য করে। প্রাচীন ভাষাগুলো থেকেই তাই এর ব্যবহারকারীদের আচরণ, ঐতিহ্য, দৈনন্দিন জীবন, চিন্তা-চেতনা, উত্সব- সবকিছু সম্পর্কে খুব সহজেই জানতে পেরেছে মানুষ। আর এই তথ্যগুলো প্রাচীন পৃথিবী আর পৃথিবীর মানুষ সম্পর্কে আরো ভালোভাবে বুঝতে সাহায্য করেছে বর্তমান পৃথিবীর মানুষকে। এই বিষয়টি কিন্তু সব ভাষার ক্ষেত্রে সত্যি নয়। পৃধিবীতে এমন কিছু ভাষা রয়েছে যেগুলো তার ব্যবহারকারীদের সম্পর্কে কোন তথ্য তো দেয়নি, বরং নিজেদের পরিচয়কেও লুকিয়ে রেখেছে। আর এমন রহস্যময় আর অজ্ঞাতকুলশীল ভাষা সম্পর্কেই চলুন জেনে আসি আজ।

১. এত্রুস্কান

রোমান সাম্রাজ্যের অনেক অনেক আগে ইতালিতে তুসকানি সভ্যতা নামে একটি সভ্যতার জন্ম হয়। আর এই সভ্যতারই মৌখিক ও লিখিত ভাষা ছিল এত্রুস্কান। পশ্চিমা বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী এই সভ্যতাটির উল্লেখ পাওয়া যায় রোমান লেখনীতে। তবে তার সবখানেই সভ্যতাটিকে তুলে ধরা হয়েছে রহস্যময় আর কম পরিচিত সভ্যতা হিসেবে। সত্যিই খুব বেশি কিছু জানা যায় না তুসকানি সভ্যতা সম্পর্কে। কেবল তাই নয়, এত্রুস্কান ভাষাকে খুঁজে পেলেও সেই ভাষা থেকে তথ্য তো দূরের কথা, ভাষার কোন অর্থই বের করতে পারেনি মানুষ। প্রচন্ড কঠিন কিছু ব্যাকরণ ব্যবহার করা হয়েছে ভাষাটিতে। ফলে তুসকানি সভ্যতা সম্পর্কে তো নয়ই, এত্রুস্কান ভাষার জন্ম নিয়েও কিছু জানতে পারেনি মানুষ।

২. বাসেক

উত্তর স্পেন এবং দক্ষিনপশ্চিম ফ্রান্সের অধিবাসী বাসেকদের মুখের ভাষা হচ্ছে বাসেক। যদিও গবেষকেরা এই ভাষাটিকে পৃথিবীর অন্যান্য সব ভাষার সাথে মেলানোর চেষ্টা করেছেন, কিন্তু কোন চেষ্টাই শেষ পর্যন্ত কাজে আসেনি। পৃথিবীর আর কোন ভাষার সাথেই বাসেকের কোনরকম মিল পাওয়া যায়নি। রোমান পূর্ব সময়ে জন্ম নেওয়া এই ভাষাটির সঙ্গী-সাথীরা বেশিরভাগই এখন হারিয়ে গিয়েছে বা হারিয়ে যাওয়ার পথে। তবে পৃথিবীতে আজ পর্যন্ত খুঁজে পাওয়া প্রাচীন ভাষাগুলোর সাথেও কোন সম্পর্ক নেই বাসেকের।

৩. সুমেরিয়ান

পৃথিবীর প্রথম লিখিত ভাষা হিসেবে সুমেরিয় ভাষার নাম উল্লেখ করা হয় প্রায়ই। ২য় শতাব্দীতে মেসোপটেমিয়ায় জন্ম নেয় এই ভাষাটি। সুমেরিয়ার লেখার পদ্ধতিকে বলা হয় কিউনিফর্ম। কোন ভাষার চাইতে এতে ব্যবহৃত চিত্র আর দাগগুলোকে অনেকটা ধারণা প্রকাশ করার প্রয়াস বলেই মনে করা হয়। এই সুমেরিয়ান ভাষার উত্পত্তিটা জানতে পারা যায়নি আজ পর্যন্ত।

৪. আইনু

জাপানের হোক্কাইডোর উত্তরের একটি দ্বীপে প্রথম বসতি গড়ে একদল আদিবাসী। আর এই আইনু নামক আদিবাসী গোত্রের মুখের ভাষা ছিল আইনু ভাষা। জাপানের অন্যান্য অংশের মানুষের চাইতে সংস্কৃতি ও অন্যান্য দিক দিয়ে একেবারেই আলাদা ছিল এই আদিবাসীরা। তাই তাদের ভাষাটাও ছিল অন্যদের চাইতে একেবারেই আলাদা। বর্তমানেও হাতে গোনা কিছু মানুষ আইনু ভাষায় কথা বলে থাকেন। তবে এর লিখিত কোন উদাহরণ পাওয়া যায় না। সেইসাথে পাওয়া যায় না এর জন্ম রহস্যও। আরো অনেক ভাষার মতন আইনু ভাষার সাথেও অন্য কোন ভাষার মিল খুঁজে পাননি গবেষকেরা।

(টুডে সংবাদ/মেহেদী)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com