পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নদীতে পড়ে আসামি শাহিনুলের মৃত্যু

y

জেলা প্রতিনিধি : সিলেটের বিশ্বনাথে ভারতীয় তির খেলা (জুয়া) চলাকালে পুলিশি অভিযানের সময় পালাতে গিয়ে নদীতে পড়ে শাহিনুল ইসলাম (৪২) নামের ৮ মামলার তালিকাভুক্ত আসামির মৃত্যু হয়েছে। তিনি উপজেলা জামায়াতের সাবেক সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার লামাকাজি ইউনিয়নের রাগীব-রাবেয়া উচ্চবিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শাহিনুল লামাকাজি ইউনিয়নের সৎপুর গ্রামের মৃত রইছ আলীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে থানায় আটটি মামলা রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানান, বিশ্বনাথ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মাসুকুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় ভারতীয় তির খেলায় জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে আটক করা হয়।

এরা হলেন, সিলেট সদর উপজেলার খালেরপাড় গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল লতিফ (৩২) ও জুনেদ মিয়া (২৫)। এই ঘটনায় আরও ৬-৭ জনকে পুলিশ আটক করলেও অন্য জুয়াড়িরা পুলিশের কাছ থেকে তাদের ছিনিয়ে নিয়ে পুলিশকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

এ খবর পেয়ে বিশ্বনাথ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলামের নেতৃত্বে অতিরিক্ত একদল পুলিশ সেখানে গিয়ে ১০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে অবরুদ্ধ পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে বিপুল পরিমাণে ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।

এতে স্থানীয় ইউপি সদস্য এনামুল হক এনামসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে বিশ্বনাথ থানায় ৮টি মামলার আসামি শাহিনুল ইসলাম (৪২) সুরমা নদীতে ঝাপ দেন।

খবর পেয়ে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে সিলেটের ফায়ার সার্ভিসের উপ পরিচালক ড. আখতারুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল ডুবুরিরা সেখানে গিয়ে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। পরে প্রায় দুই ঘণ্টার চেষ্টায় রাত ৮টার দিকে ডুবুরিরা নদী থেকে নিখোঁজ শাহিনুলের মরদেহ উদ্ধার করে।

বিশ্বনাথ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, তির খেলা বন্ধে থানা পুলিশ লামাকাজিতে অভিযানে যায়। পুলিশকে দেখে পালাতে গিয়ে তালিকাভুক্ত আসামি শাহিনুল ইসলাম নদীতে ঝাপ দেন। তার বিরুদ্ধে থানায় অনন্ত ৮টি মামলা রয়েছে বলেও জানান ওসি।

(টুডে সংবাদ/তা.সু.পি)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com ভিজিট করুন, লাইক দিন এবং  শেয়ার করুন