ওহাইয়ো বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলার দায় স্বীকার আইএসের

is

নিউজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইয়ো বিশ্ববিদ্যালয়ে সোমবারের বন্দুক হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেছে জিহাদি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। ওই হামলায় ১১ জন আহত হয়।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সোমালীতে জন্মগ্রহণকারী আব্দুল রাজাক আলি আরতান ওহাইয়ো বিশ্ববিদ্যালয়ে এ হামলা চালায়। হামলাকারী কলম্বাস ক্যাম্পাসের একজন ছাত্র। আইএস’র মুখপাত্র বার্তা সংস্থা আমাক একথা জানিয়েছে।

আমাক ১৮ বছর বয়সী ব্যবসায়ে অধ্যয়নরত ছাত্রটিকে আইএস’র একজন ‘যোদ্ধা’ হিসেবে অভিহিত করে।

তাৎক্ষণিকভাবে আইএসের এই দাবির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

আইএস প্রায়ই যারা এ ধরনের সহিংস হামলা চালায় তাদেরকে গোষ্ঠীটির ‘যোদ্ধা’ হিসেবে অভিহিত করে।

তবে এখানে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নটি হচ্ছে এই হামলাকারী কি আইএসের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করেছিল কিনা।

যদি তাদের মধ্যে সরাসরি যোগাযোগ না হয়ে থাকে, তবে সে নিজেই গোষ্ঠীটির দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে এ হামলা চালিয়েছে ধরা হবে।

তবে যতক্ষণ পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট কোন প্রমাণ পাওয়া না যায়, ততক্ষণ পর্যন্ত আইএসের দাবির সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া খুবই কঠিন।

হামলার নির্দেশনা যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে থেকে এসেছিল না কি আরতান নিজেই চরমপন্থায় অনুপ্রাণিত হয়েছিল বার্তা সংস্থাটি সে ব্যাপারে কিছু জানায়নি।

আমাক আরতানের একটি ছবি পোস্ট করে। এতে সবুজ পটভূমিতে তাকে একটি নীল রঙের শার্ট পড়ে বসে থাকতে দেখা যায়। (টুডেসংবাদ/এআরএ)