হলোকস্ট বন্দিদের পোশাক পরে সমালোচিত পুটিনের মুখপাত্রের স্ত্রী

tatiana00

নিউজ ডেস্ক : রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের মুখপাত্রের স্ত্রী, আইস স্কেটার টাটিয়ানা নাভকা কনসেনট্রেশন ক্যাম্পের বন্দিদের পোশাক পরে পারফর্ম করে সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন। তবে নাভকা মনে করেন, যা করেছেন, ঠিকই করেছেন।

অলিম্পিকে সোনা জয়ী আইস স্কেটার টাটিয়ানা নাভকা পুটিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকোভের স্ত্রী। দেশটির সরকারি টেলিভিশনে প্রচারিত এক রিয়েলিটি শোতে নাভকা তার পার্টনার অভিনেতা আন্দ্রে বুর্কোভস্কির সঙ্গে অংশ নেন।

১৯৯৭ সালে মুক্তি পাওয়া ইটালিয়ান ট্র্যাজিক কমেডি ‘লাইফ ইজ বিউটিফুলে’র উপর ভিত্তি করে রচিত চার মিনিটের একটি পারফর্মেন্সে অংশ নেন নাভকা ও বুর্কোভস্কি। সেখানে তারা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় কনসেনট্রেশন ক্যাম্পের বন্দিরা যে পোশাক পরতেন, সেরকম পোশাক পরেন। ইটালিয়ান ঐ মুভিতে একজন ইটালীয় ইহুদি ব্যক্তির কনসেনট্রেশন ক্যাম্পে বেঁচে থাকার সংগ্রাম দেখানো হয়েছিল।

নাভকা ও তার সঙ্গীর পারফর্মেন্স সর্বোচ্চ পয়েন্ট পায়। বিচারকরাও তাদের পারফর্মেন্সের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তবে সমালোচনা এসেছে ইসরায়েল থেকে। সামাজিক মাধ্যমেও সমালোচনা হচ্ছে অনেক।

ইসরায়েলের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী মিরি রেগেভ ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর রেডিওর এক সাক্ষাৎকারে বলেন, হলোকস্টের মোটিফ পার্টির জন্য নয়, তা নাচের জন্য বা টিভির রিয়েলিটি শো’র জন্যও নয়।

হত্যার শিকার হওয়া ছয় মিলিয়ন ইহুদির একজনও নাচেননি, আর কনসেনট্রেশন ক্যাম্প কোনো সামার ক্যাম্প নয়, বলেন রেগেভ।

তবে অনুষ্ঠানের প্রযোজক অলিম্পিক রূপা জয়ী ইলিয়া আভারবুক, যিনি নিজেও একজন ইহুদি, বলেন, এটা (নাভকা যেটিতে পারফর্ম করেন) আমার আইডিয়া। আমি আগেও যুদ্ধ ও ইহুদিদের নিয়ে অনেক কাজ করেছি।

রুশ প্রেসিডেন্ট পুটিনসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হলোকস্টে নিহতদের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন এবং যারা নাৎসিদের কাজের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন, তাদের সমালোচনা করেছেন।

এদিকে, নাভকা ও তার সঙ্গীর পারফর্মেন্সের সমালোচনা হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমেও। ইহুদি-আমেরিকান কমেডিয়ান সারাহ সিলভারম্যান টুইটারে তার ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

নাভকা কি হলোকস্টকে ‘কিউট আর মজার’ মনে করেছেন কিনা- এই প্রশ্ন তুলেছেন চলচ্চিত্র নির্মাতা জুলিয়া ডেভিস।

নাভকা নিজে ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি প্রকাশ করে লিখেছেন, হলোকস্টের ভয়াবহতা সম্পর্কে তরুণ প্রজন্মকে জানাতেই তিনি এই পারফর্মেন্সে অংশ নিয়েছেন। তার এই পোস্টের নীচে অনেকে সমালোচনামূলক মন্তব্য করেছেন।

চ্যানেল ওয়ানের ওয়েবসাইটেও এমন প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন দর্শকরা। মিহায়েল রাটিনস্ক লিখেছেন, ‘‘আপনারা কি পাগল হয়ে গেছেন? বন্দিদের পোশাক পরে মুখে হাসি! দর্শকরা হাততালি দিচ্ছেন!”

আরেকজন লিখেছেন, এটি ভয়াবহ। মানুষ জানে না তারা কী করছে। এটি ব্লাসফেমি। (টুডেসংবাদ/এআরএ)