এক গ্রামে ২৫ সাকো,দুর্ভোগে বাসিন্দারা

02

মুলাদী (বরিশাল) প্রতিনিধিঃ বরিশালের মুলাদী উপজেলার একটি গ্রামে রয়েছে ছোট-বড় ২৫টি সাকো। জানাগেছে যে, উপজেলার চরকালেখান ইউনিয়নের ছত্রিশ ভেদুরিয়া গ্রামের বাসিন্দাদের প্রতিনিয়ত পার হতে হয়  ছোট-বড় ২৫টি কাঠ/বাঁশের সাকো। ভেদুরিয়া গ্রামে মাত্র দের থেকে দুই কিলোমিটার কাঁচা রাস্তায় রয়েছে ১৮টি সাকো। এসব বাঁশের সাকো পার হতে গিয়ে অাহত বা দূর্ঘটনার শিকার  হয়েছে ছাত্র-ছাত্রী, নারী-শিশু ও বৃদ্ধারা। এতে চরম দুর্ভোগে পরেছে এই এলাকার  দুই সহস্রাধিক বাসিন্দা।

জানাগেছে যে, চলতি বছরের বর্ষা মৌসুমে প্লাবনের ফলে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে যাওয়ায় বিভিন্ন স্হানে সাকোর পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানান স্হানীয়রা। চরকালেখান ইউনিয়নের ইউপি সদস্য বজলুর রহমান জানান চলতি বর্ষা মৌসুমে প্রবল পানির স্রোতের কারনে ভেদুরিয়া গ্রামের অাঃ সালাম সরদারের বাড়ি পর্যন্ত দের কিলোমিটার রাস্তার বিভিন্ন স্হানে ভেঙ্গে যাওয়ার ফলে স্হানীয়রা চলাচলের জন্য বাঁশ, কাঠ দিয়ে সাকো তৈরি করে। যার কারনে সাকোর পরিমাণ বৃদ্ধি পায়।  বরিশাল- ৩ ( মুলাদী, বাবুগঞ্জ) অাসনের এমপি এ্যাড. শেখ টিপু সুলতান জানান পানির তীব্র স্রোতের কারনে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে যাওয়ায় ভেদুরিয়া গ্রামের বাসিন্দাদের সাকো দিয়ে রাস্তা পার হতে হয়। তবে খুব শিগ্রই রাস্তাটি সংস্কার ও প্রয়োজনীয় স্হানে কালভার্ট/ ব্রীজ নির্মাণ করা হবে।