ভারতের রেড এ্যালার্ট জারী, বাংলাদেশে তিস্তার পানি বিপদসীমার উপড়ে

মহিনুল ইসলাম সুজন,নীলফামারী প্রতিনিধিঃ উজানের ঢলে ও টানা বর্ষনে তিস্তানদীতে ভয়ানক রুপ দেখা দিতে পারে। ভারতীয় অংশের তিস্তায় ইতোমধ্যে রেড এ্যালার্ট জারী করা হয়েছে। শনিবার বিকাল ৬টা থেকে বাংলাদেশ অংশের ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তার প্রবাহ ছিল বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার উপরে। এবং পানি বৃদ্ধি অব্যাহত ছিল। তিন ঘন্টার ব্যবধানে রাত ৯টায় পানি উন্নয়ন বোর্ড তিস্তার পানি প্রবাহ দেখতে পেয়েছে বিপদসীমার ১৩ সেন্টিমিটার উপরে।
সেই সাথে তিস্তার পাগলা ঢেউ আর শোঁ শোঁ শব্দ তিস্তাপাড়কে কাঁপিয়ে তুলেছে। তিস্তাপাড়ের চারিদিকে ছড়িয়ে তিস্তার বানবাসীদের মধ্যে বিরাজ করছে ভিষন আতঙ্ক।
নীলফামারীর ডিমলা উপজেলা ও লালমনিরহাট জেলা হাতিবান্ধা ও কালিগঞ্জ উপজেলার তিস্তার চর ও চর গ্রামে বসবাসরত মানুষজনকে নিরাপদে সরে যেতে বলেছেন স্ব-স্ব এলাকার জনপ্রতিনিধিরা।
ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সর্তকীকরন কেন্দ্র সুত্র জানা যায়, শনিবার সকাল ৬টায় ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি বিপদসীমার (৫২ দশমিক ৪০ মিটার) ১৮ সেন্টিমিটার নিচে থাকলেও ১২ ঘন্টার ব্যবধানে সন্ধ্যা ৬টায় তা বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার উপরে উঠে যায়। রাত ৯টায় সেটি দৃতীয়দফা বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।
ধারনা করা হচ্ছে উজানের ভারী বৃস্টিপাত ও গজলডোবার জলকপাট খুলে দেয়ায় তিস্তার প্রবাহ দুর্বার গতিতে বাংলাদেশে ধেয়ে আসছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে বাংলাদেশের ডিমলা উপজেলা ডালিয়া পয়েন্টে অবস্হিত তিস্তা ব্যারাজের সবকটি (৪৪টি) জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে বলে জানান ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজার রহমান।
তিনি আরো জানিয়েছেন, কি পরিমান উজানের ঢল ধেয়ে আসতে পারে তা নিবিড় ভাবে মনিটরিং করা হচ্ছে। সেই সাথে তিস্তা ব্যারাজ ও ফ্লাড ফিউজ এলাকায় সর্বদা নজরদারিতে রাখা হয়েছে।
ভারতের জলপাইগুড়ি,কুচবিহার এলাকার বাংলাদেশ অংশে প্রবেশদার মেখলিগঞ্জ পর্যন্ত তিস্তা অববাহিকায় রেড এ্যালার্ট জারী করেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।
ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানায়, উপজেলার তিস্তা নদী বেষ্টিত ৭টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছেন।

(টুডে সংবাদ/উদয়া)

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে www.todaysangbad.com  ভিজিট করুন এবং

লেখাটি ভালো লাগলে লাইখ দিন এবং  শেয়ার করুন